১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • Uncategorized
  • সৌদি ক্লাব আল–নাসরে যোগ দিলেন রোনালদো
  • সৌদি ক্লাব আল–নাসরে যোগ দিলেন রোনালদো

    মুক্তি কন্ঠ

    সৌদি আরবের ক্লাব আল নাসরে যোগ দিয়েছেন ইউরোপের সফল ফুটবল তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ৩৭ বছর বয়সী পর্তুগাল তারকা  এশিয়ার ক্লাবটির সঙ্গে ২০২৫ সাল পর্যন্ত চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন।

     

     

    ক্লাবের একটি সূত্র মার্কিন টেলিভিশন সিবিএসকে জানায়, প্রতিবছর সাড়ে ৭ কোটি ডলার বেতন পাবেন রোনালদো। যা সত্যি হলে ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি বেতন পাওয়া ফুটবলার হবেন তিনি।

    শুক্রবার আল নাসরের দেওয়া বিবৃতিতে রোনালদো বলেছেন, ‘একটি ভিন্ন দেশে নতুন ফুটবল লিগের অভিজ্ঞতা নিতে আমি রোমাঞ্চিত বোধ করছি। সৌদি আরবের পুরুষ ও নারী ফুটবলের উন্নয়নে আল নাসরের যে লক্ষ্য, সেটা খুবই অনুপ্রেরণাদায়ক।’

    কাতার বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে সৌদি আরবের জয়ের প্রসঙ্গে টেনে রোনালদো বলেন, ‘সৌদি আরবের সাম্প্রতিক বিশ্বকাপ সাফল্য বলে দিচ্ছে, দেশটির ফুটবল নিয়ে লক্ষ্যটা অনেক বড় এবং প্রচুর সম্ভাবনা আছে।’

    ২০০২ সালে স্পোর্তিং সিপির সিনিয়র ক্যারিয়ার শুরু করা রোনালদো সর্বশেষ দেড় বছর ছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। বিশ্বকাপ শুরুর আগমুহূর্তে ক্লাবটির কোচ, শীর্ষ কর্মকর্তা ও মালিকপক্ষ নিয়ে বেশ কিছু ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য করেন তিনি।

    যার জেরে বিশ্বকাপের মধ্যে দুই পক্ষের ‘পারস্পরিক সমঝোতা’য় রোনালদো-ইউনাইটেড সম্পর্কছেদের খবর প্রকাশ পায়।

    ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে এর আগেও ৬ বছর কাটিয়েছিলেন তিনি। ২০০৯ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত ছিলেন রিয়াল মাদ্রিদে।

    স্প্যানিশ ক্লাবটির হয়ে ৪টি চ্যাম্পিয়নস লিগসহ দুইবার লা লিগা জেতেন। রাশিয়া বিশ্বকাপের পর ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসে যোগ দিয়ে খেলেন ৩ মৌসুম।

    সব মিলিয়ে ইউরোপের ৪টি ক্লাবে কাটিয়েছেন ২০ বছর। ৫ বার জিতেছেন চ্যাম্পিয়নস লিগ, ৭ বার লিগ। ব্যালন ডি অর পুরস্কার জিতেছেন ৫ বার।

    আল নাসরে যোগ দিয়ে ইউরোপীয় ফুটবলে নিজের সাফল্যের কথা উল্লেখ করে রোনালদো বলেন, ‘আমি সৌভাগ্যবান, ইউরোপিয়ান ফুটবলে যা কিছুর জন্য খেলেছি, তার সবই জিতেছি। এখন সেই অভিজ্ঞতা এশিয়ায় ভাগাভাগির সঠিক সময়।’

    উল্লেখ্য”  ক্রক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর নতুন ক্লাব আল নাসর সৌদি আরবের প্রো লিগে খেলে। সৌদির ইতিহাসে আল-হিলালের পর দ্বিতীয় সেরা সাফল্য আল নাসরের।