১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • খেলা
  • দাবায় ব্যতিক্রমী আয়োজন
  • দাবায় ব্যতিক্রমী আয়োজন

    মুক্তি কন্ঠ

    মুক্তিকন্ঠ খেলা ডেস্ক :

    ধারাবাহিক আয়োজনের ভিড়ে ‘এলিগ্যান্ট আমন্ত্রণমূলক রেটিং দাবা’ প্রতিযোগিতাকে খালি চোখে আর দশটা আসরের মতো মনে হবে। কাঠামোগতভাবে এ আয়োজনে অবশ্য ভিন্নতা আছে। আসরটি আয়োজিত হচ্ছে ক্যান্ডিডেট টুর্নামেন্টের আদলে; যার উদ্দেশ্য প্রতিভাবান শীর্ষ দাবাড়ুদের প্রতিযোগিতামূলক আসরের চর্চার মধ্যে রাখা।

    বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের হল রুমে চলমান আসরের পৃষ্ঠপোষক এলিগ্যান্ট ইন্টারন্যাশনাল চেস একাডেমি, যা আয়োজিত হচ্ছে বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের সহযোগিতায়। দেশের বাইরের সব প্রতিযোগিতায় দাবাড়ুরা যাতে আশানুরূপ সাফল্য অর্জন করতে পারেন, এ জন্যই এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে—জানালেন আয়োজকরা। প্রতি তিন মাস অন্তর এ প্রতিযোগিতা আয়োজনের পরিকল্পনার কথাও জানানো হয়েছে। যেখানে শীর্ষ ৮ দাবাড়ু ডাবল রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে খেলবেন। প্রতিযোগিতার প্রথম পর্যায়ের ৭ রাউন্ড সমাপ্ত হয়েছে।

    সপ্তম রাউন্ডের খেলা শেষে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ফিদে মাস্টার মনন রেজা নীড় ৬ পয়েন্ট নিয়ে এককভাবে শীর্ষে আছেন। বাংলাদেশ বিমানের আন্তর্জাতিক মাস্টার আবু সফিয়ান শাকিল সাড়ে ৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ও বাংলাদেশ পুলিশের ক্যান্ডিডেট মাস্টার সাকলাইন মোস্তফা সাজিদ ৫ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছেন। সাড়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর নারী ফিদে মাস্টার নোশিন আঞ্জুম চতুর্থ স্থানে আছেন।

    সপ্তম রাউন্ডে মনন রেজা নীড় নাইম হককে বলেন, আবু সফিয়ান শাকিল সাকলাইন মোস্তফা সাজিদকে, মো. তৈয়বুর রহমান সৈয়দ মাহফুজুর রহমানকে এবং নোশিন আঞ্জুম মেহেদী হাসান পরাগকে পরাজিত করেন।

    প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের যুগ্ম সম্পাদক ও বাংলাদেশ পুলিশের এডিশনাল ডিআইজি ড. শোয়েব রিয়াজ আলম।

    এ সময় উপস্থিত ছিলেন এলিগ্যান্ট ইন্টারন্যাশনাল চেস অ্যাকাডেমির ম্যানেজিং ডিরেক্টর মাহমুদা হক চৌধুরী মলি।

    সূত্র : কালবেলা