১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • আর্ন্তজাতিক
  • তুরস্কের টাইগার মিসাইল সিস্টেম যুক্ত হলো সেনাবাহরে
  • তুরস্কের টাইগার মিসাইল সিস্টেম যুক্ত হলো সেনাবাহরে

    মুক্তি কন্ঠ

    বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আধুনিকায়নের ধারায় এবার সেনাবহরে যুক্ত হয়েছে তুরস্কের তৈরি টাইগার মাল্টিপল লঞ্চ মিসাইল সিস্টেম (এমএলআরএস)। আজ মঙ্গলবার দেশের মাটিতে প্রথমবারের মতো ১২০ কিলোমিটার রেঞ্জের ক্ষমতাসম্পন্ন এই মিসাইলের ফায়ারিং অনুষ্ঠিত হয়েছে।

     

    কক্সবাজার জেলার টেকনাফের শিলখালী ফিল্ড ফায়ারিং রেঞ্জে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদের উপস্থিতিতে এই ফায়ারিং হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান, ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ও চট্টগ্রাম এরিয়ার কমান্ডার মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম, সেনাবাহিনীর অ্যাডজুট্যান্ট জেনারেল মেজর জেনারেল মো. নজরুল ইসলাম, ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও কক্সবাজার এরিয়ার এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. ফখরুল আহসান, ৯ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও সাভার এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মোহাম্মদ শাহীনুল হক।

     

    এ ছাড়া নৌবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সেনা সদর ও স্থানীয় ফরমেশনের ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন পদবির সেনা সদস্য ও গণমাধ্যম ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

     

    এ সময় সেনাপ্রধান বলেন, জাতির পিতার অসমাপ্ত স্বপ্ন বাস্তবায়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনায় প্রণীত ফোর্সেস গোল-২০৩০-এর আলোকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সম্প্রসারণ ও আধুনিকায়ন একটি যুগোপযোগী পদক্ষেপ। এরই ধারাবাহিকতায় আজ (গতকাল) প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের মাটিতে ১২০ কিলোমিটার রেঞ্জের ক্ষমতাসম্পন্ন টাইগার এমএলআরএসের ফায়ারিং অনুষ্ঠিত হলো, যা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী তথা বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি উল্লেখযোগ্য ঘটনা।

     

    তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে নতুন সংযোজিত তুরস্কের তৈরি টাইগার মিসাইল সিস্টেম আমাদের আভিযানিক সক্ষমতাকে দিয়েছে এক নতুন মাত্রা।’

     

    সুত্র: কালের কন্ঠ