১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • রাজনীতি >> সারাদেশ
  • টাঙ্গাইলে সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা রনির বাসভবনে হামলার প্রতিবাদে ঢাবিতে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মানববন্ধন:
  • টাঙ্গাইলে সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা রনির বাসভবনে হামলার প্রতিবাদে ঢাবিতে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মানববন্ধন:

    মুক্তি কন্ঠ

    মুক্তিকন্ঠ ডেস্ক :

    টাঙ্গাইলের ধনবাড়িতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসীম উদ্দিন হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান রনির বাসভবনে ন্যাক্কারজনক সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে আজ ২০ জানুয়ারী শনিবার বিকাল ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচী পালন করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন এর সঞ্চালনায় উক্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। আরোও বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রাকিব হোসেন, সংগঠনের সহ-সভাপতি ফিরোজ আহমেদ সুজন, দপ্তর সম্পাদক মুহাম্মদ নূর আলম সরদারসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

    মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের বক্তব্যে সংগঠন সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, “টাঙ্গাইলের ধনবাড়িতে সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান রনির বাসভবনে ন্যাক্কারজনক সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। টাঙ্গাইলের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিকট আহবান অবিলম্বে হামলাকারী সকল সন্ত্রাসী ও মদদদাতাকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। নির্বাচন পরবর্তী বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় প্রতিনিয়ত সন্ত্রাসী হামলা সংঘটিত হচ্ছে যা কখনোই কাম্য নয়। শুধু নির্বাচন সম্পন্ন করে দায়িত্ব শেষ এরকম দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের হওয়া উচিত নয়। নির্বাচন পূর্ববর্তী ও নির্বাচন পরবর্তী জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাও নির্বাচন কমিশনের সাংবিধানিক দায়িত্ব। নির্বাচন কমিশনের নিকট দাবি, অবিলম্বে নির্বাচন কেন্দ্রীক সকল হামলা ও সহিংসতার বিচার করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। প্রয়োজনে বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিশন গঠন করে এসব হামলার বিচার করতে হবে। যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে তারা কখনোই এধরণের সন্ত্রাসী হামলা করতে পারে না। বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা বলেছেন সন্ত্রাসীদের কোন দল নেই। এরা দেশ ও জাতির শত্রু। দুঃসময়ের ছাত্রনেতা মেহেদী হাসান রনির ওপর হামলায় জড়িত প্রত্যেককে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় দেশব্যাপী কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।”

    সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, “দুর্দিনের ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান রনির বাসভবনে সাবেক কৃষি মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের আত্নীয় স্বজনরা রাতের আধাঁরে হামলা চালিয়ে কাপুরুষোচিত আচরণের পরিচয় দিয়েছে। কিছুদিন আগে সরকারের বিরুদ্ধে বেফাঁস মন্তব্য করে মন্ত্রীত্ব হারানো সাবেক কৃষি মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের সমর্থকরা মেহেদী হাসান রনির ওপর হামলা চালিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের হৃদয়ে আঘাত করেছে। যতক্ষণ পর্যন্ত এই হামলার বিচার না হবে ততদিন পর্যন্ত আমরা রাজপথে থাকবে। সমগ্র বাংলাদেশে নির্বাচন পরবর্তী যতোগুলো সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে প্রত্যেকটির বিচার করতে হবে। এসব সন্ত্রাসী ও মদদদাতাদেরকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করতে হবে।”

    সংগঠনের সহ-সভাপতি ফিরোজ আহমেদ সুজন বলেন, “নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সমগ্র বাংলাদেশে অনেক বিজয়ী প্রার্থী প্রতিপক্ষের সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়ে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের রাজত্ব কায়েম করার চেষ্টা করছে। এদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদের ধারা অব্যাহত থাকবে। সকল সন্ত্রাসীদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে। দেশব্যাপী সন্ত্রাসী হামলা বন্ধ না হলে এসব হামলার মদদদাতা জনপ্রতিনিধিদের মুখোশ জাতির সামনে উন্মোচন করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। মেহেদী হাসান রনির বাসভবনে হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবি জানাচ্ছি।”